কথোপকথন

কথোপকথন

তোমাকে একটা কথা বলব?কাছে থেকেও যে এত দূরে চলে যাওয়া যায় সেটা বেশ কয়েক বছর পর অনুভব করতে পারছি।দিব্যি তো ছিলাম গো দুজনে দিল্লিতে, এখানে সবার সাথে এসে খুব ভালো লাগছে, খুব ভালো সময় কাটছে, কিন্তু..........…যেদিন থেকে ডেট ফিক্সট হল যে আমরা কলকাতায় যাব সেদিন থেকে কত প্ল্যান করেছিলাম বল তাই না?মনে হচ্ছিল দিন কাটছে না।মনে মনে কত প্ল্যান করতাম এখানে ঘুরবো ,ওখানে ঘুরবো,দিয়ার বিয়েতে কত মজা করব ,সবাইকে নিয়ে পিকনিকে যাব ,এটা খাব ওটা খাব ,এটা কিনব আর তুমি বলতে এখন থেকে এত প্ল্যান করো নাতো।ট্রেনে আসার সময় শুধু মনে হচ্ছিল কখন হাওড়াতে নামব, আর হাওড়াতে নেমেই যদি বাড়ির সবাইকে দেখতে পেতাম... কিন্তু সেটা তো আর সম্ভব হবেনা বলো?তখন শুধু এটা ভাবছিলাম দিয়ার বিয়ের গিফট টা কখন দিয়ার হাতে দেব ,আর দিয়া দেখে সেটা কত খুশি হবে?যখন বাড়ি ঢুকলাম সবাই একসাথে এত সুন্দর ভাবে ওয়েলকাম করল যে কিছুটা সময়ের জন্য এটাই মনে হচ্ছিল যে কেন এদের এতো ভালোবাসা ছেড়ে দুজনে দিল্লিতে পড়ে আছি -টাকা পয়সা রোজগার করাটাই কি সব?বেশ তো তারপরদুদিন কাটলো বলো? দুদিন নয় দিয়া রিসেপশন পর্যন্ত বেশ মজাই করছিলাম।সময় কিভাবে দৌড়াচ্ছিল বুঝতেই পারিনি।তুমিতো পাঞ্জাবি পড়ে ভালোই ফুলবাবু হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছিলে ,আমি যে তোমার বউ সেটা একবারও পাত্তাও দাওনি। সবাই আমাকে বলছিল আমাকে নাকি বিয়ে, বৌভাত দুদিন খুব ভালো দেখতে লাগছিল কিন্তু তুমি  তো একবারও পাত্তা দাওনি, একবার ঘুরে তাকাও নি আমার দিকে।কত ফটো তোল অন্য সময় আমার আর বিয়ের দিন শুধু দিয়ার ই ফটো তুললে,দুজনে শুধু একসাথে একটা সেলফি তুলেছি।খুব খারাপ লেগেছে কিন্তু আমার, খুব খারাপ তুমি।যাও কথা বলবো না তোমার সাথে আর ........রাগ করেও থাকতে পারিনা তোমার ওপর। এই শোনো... তুমি আমাকে মিস করছো এই কদিন? জানো আমার বারবার নিজেদের বিয়ের কথা মনে পড়ছিল, জানি তোমার ওসব মনে পড়বে না -লোহা দিয়ে বাঁধানো তো তোমার হৃদয়।কি করছো গো এখন তুমি?আমাকে ঘুমন্ত অবস্থায় দেখতে ইচ্ছে করছে না তোমার?আমিতো বারবার মাথা উঁচু করে তোমাকে দেখছি, তোমার আর আমার মাঝে মাত্র দুজন শুয়ে আছে কিন্তু তাও মনে হচ্ছে যেন কতদিন ধরে তোমার কত দূরে আছি.. তোমার মনে হচ্ছে?ধুর তুমি তো শুলে ঘুমিয়ে কাদা, তোমায় জিজ্ঞাসা করে কি লাভ?তোমার তো ওসব ফিলিং টিলিং আসে না।বিশ্বাস করো খুব ছুঁতে ইচ্ছে করছে তোমায়.. খুব মনে পড়ছে জানো দুজন একসাথে কতদিন খাইনা? তুমি আমাকে কতদিন খাইয়ে দাও না।। আচ্ছা বাড়িতে তো সারাদিন আমার পাশে বসে থাকতে, এখন লোকজন পেয়ে আমার পাশে এসে একবার বসতে ইচ্ছে করছে না তাই না?বাড়িতে তো সারাদিন ধরে শুধু জড়িয়ে ধরতে চাইতে, ঘুমন্ত অবস্থায়ও কপালে চুমু খেতে- এখন এতদিন আমাকে না ছুঁয়ে কি করে আছো বলো তো তুমি?উফ আবার খুব দেখতে ইচ্ছে করছে তোমায় আর একবার, দাড়াও উঠে বসে তোমায় একটু দেখি -বললাম না তুমি ঘুমিয়ে কাদা, কি আর করবে তোমাকে দোষ দেই বা কি করে সারাদিন যা ধকল যাচ্ছে তোমার ওপর দিয়ে।সবার সামনে তোমার একটু কেয়ার করতে পারছিনা, ইস গালটা কি ড্রাই হয়ে গেছে তোমার,তোমার যে কি অভ্যাস আমি ক্রীম মাখিয়ে না দিলে তুমি ক্রিম কিছুতেই মাখবে না,পাগল এটা বোঝনা সবার সামনে কি ক্রিম মাখিয়ে দেওয়া সম্ভব ?নিজে তো একটু ক্রিম মাখতে হয়।পরিমান মত জলও হয়তো খাচ্ছো না।খুব ইচ্ছে করছে জানো তোমাকে জড়িয়ে ধরে ঘুমাই, কিন্তু দূরত্ব......এইরে টুকান মনে হয় জেগে গেছে আমি শুয়ে পড়ি তাড়াতাড়ি নাহলে সবাই খুব হাসবে, হয়তো আদিখ্যেতাও ভাবতে পারে। কবে যে বাড়ি যাব..... আর পারছি না জানো?তোমাকে নিজের মতন করে না পেলে সবটাই যেন ওলট-পালট হয়ে যায় আমার সেটা কি তুমি বোঝনা? আর এখানে নাএলে হয়তো সেটা আমি বুঝতাম না।উফ এবার হালকা হালকা ঘুম আসছে বোধহয় আমার, চোখের পাতা টা জ্বলছে চোখ খুলে রাখতে পারছিনা আর। অনেক বকবক করলাম মনে মনে তোমার সাথে এবার ঘুমায় গো।আশাকরি ঘুমিয়েও স্বপ্নে তোমাকে পাবো নিজের মত করে,কিগো আসবে তো আমার স্বপ্নে?আমি কিন্তু ঘুমালাম তোমার কিন্তু আশা চাই-ই চাই আমার স্বপ্নে।