ত্রিকোণ প্রেম

ত্রিকোণ প্রেম

এই দুনিয়া বড় আজব রে ভাই বড় আজব। কেউ সিঙ্গেল ,কেউ মিঙ্গেল, কেউ আবার ভয়ে কাতর, হাহাহা কেউ আবার চান্স খোঁজে চান্স পে ডান্স মারার জন্য।যাইহোক এসব সিঙ্গেল ,মিঙ্গেল ,সুযোগসন্ধানী ছেড়ে এসো কাকা ঢুকে যাই আজকের টপিকে... আজকের টপিক ত্রিকোণ প্রেম।

প্রেম তো শুনেছি, হয়তো করেওছি কয়েকবার কিন্তু প্রেমে আবার জ্যামেতি মানে ত্রিকোণ ত্রিভুজ তো ভাই আমার জীবনে আসেনি,আর আসলেও আমি টের পাইনি-আমাকে কখনো প্রেমে স্কেল নিয়ে মাপতেও হয়নি।ওহো আমার না এলে তোমাদের যে আসবে না তার দিব্যি খেয়ে তো আর কেউ বসে নেই ।জীবন চলছে চলবে করে এগোলেও ধূমকেতুর মতো প্রেম মাঝে মাঝেই জীবনে উঁকি মারে।মনে বারবার প্রেম আসতে তো আর পয়সা লাগে না বা মনকে কোন ট্যাক্স দিতে লাগে না তাই দাদা বারবার প্রেম আসতে ক্ষতি কি?বরং প্রেমে জীবন রঙিন হয় তাই প্রেম নিয়ে আমার কোন বক্তব্য নেই ভাই ,আমার বক্তব্য ট্রায়াঙ্গেল লাভ স্টোরি নিয়ে।

এখন কচি, খুড়ো, বুড়ো সবাই প্রেমে ব্যস্ত। রাস্তার লাইটপোষ্টের মত প্রেমে লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে আছে সবাই। এখনকার ট্রেন্ড প্রেম মানেই তো ফ্রেন্ড তাই না ভাই?আর সেখানেই সমস্যাটা শুরু।ছেলে বেস্ট ফ্রেন্ড কে ফাটিয়ে ভালোবাসছে ।মেয়ে অন্যদিকে প্রজাপতি হয়ে ডানা মেলে মধু খেয়ে বেড়াচ্ছে ফুলে ফুলে আর সেটাই এসে সুবিস্তারে ইলাস্টিকের মতো টেনে বড় করে বর্ণনা করছে তার বেস্ট ফ্রেন্ড কেএদিকে বেস্ট ফ্রেন্ডের বুক ফাটে তবু মুখ ফোটে না।কেন ভাই এত ফাটাফাটির কি আছে? সাত বিলিয়ন এর পৃথিবী আমাদের মেয়ে তো আর অভাব নেই একটা ছেড়ে একটা বাছো।মেয়ের খাওয়া,বসা, ওঠা,পড়া, ঘোরা সব একসাথে আর প্রেম অন্য কারো সাথে? আরে ভাই তোমরা এত বোকা কেন? বেস্ট ফ্রেন্ড হলেও তো সেই মেয়ে সবই বোঝে তোমার মনের কথা -ভুলে যেও না মেয়েরা যে মন পড়তে জানে।আর সে তো তোমার দুর্বলতার সুযোগে চান্স পে দান্স মেরে বেরিয়ে যাচ্ছে।সমস্ত প্রবলেমে বেস্ট ফ্রেন্ড আর প্রেম-ভালোবাসা গিফট এ বয়ফ্রেন্ড?উরিব্বাস মেয়ে তোমরা এত চালাক হলে কবে?আরে সে তো নতুন নতুন বয়ফ্রেন্ডের সাথে বাইকের ধুয়া উড়িয়ে রাস্তার ধুলো উড়িয়ে রেস্টুরেন্টে গিয়ে চব্য চোষ্য খাচ্ছে আর তুমি অন্ধকার ঘরের কোণে বসে কান্না গিলে খাচ্ছো?

আরে ভাই সেটা তো এখন twenty20,তাই একটু ভালো থাকতে তুমিও খেলো না তোমার জীবনের সাথে একটু twenty20 গেম।নব্বইয়ের দশকের প্রেম আর নেই গো-হ্যাঁ তুমি হয়তো এখন বলতে পারো তোমার তো একটা মন আছে, আর সেই মনে কিছুটা ভালোবাসাও আছে।তাহলে ভাই সেটাই যদি ভাবো তাহলে রিজেকশন সহ্য করতে পারার সাহস রেখে বেস্ট ফ্রেন্ডকে প্রপোজ করেই ফেল।হয় ছক্কা না হয় ফক্কা তো  মিলবেই- আর তারও একটা সলিউশন আছে-

জীবন তো কাকা একটাই তাই প্রেমের বিরহের দেবদাস না হয়ে কলিযুগের রোমিও ও তো হতে পারো।কাছে থেকে কষ্ট পাওয়ার থেকে গুটি গুটি পায়ে হেঁটে কষ্ট থেকে বেরিয়ে আসাটা অনেক ভালো না?কথায় আছে আউট অফ সাইট, আউট অফ মাইন্ড চলনা ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, কল লিস্ট থেকে সবকিছু ব্লক করে আউট অফ মাইন্ড করে দেই ব্যাপারটা।ফোনে ইন্টারনেট আর মনে ফুরফুরে প্রেম নিয়ে একাউন্ট খুলে ফেলি ডেটিং অ্যাপ গুলোতে।দেখো এবার একটা নয় লক্ষ লক্ষ মেয়ে নাচে তোমার চোখের ইশারায়, সবাই তোমার প্রেমে পাগল।হ্যাঁ এবার হয়তো তুমি বলতেই পারো যে তোমার কি সত্যি কারের ভালোবাসা পাওয়ার অধিকার নেই?হ্যাঁ আছে কিন্তু ভাই সবাই তো পদ্মার ইলিশ খেতে চায় কিন্তু সবাই কি পায় ?যে পায় সে ভাগ্যবান আর যে পায় না সে কি মাছ না খেয়ে বসে থাকবে ?তাকে তো দীঘার ইলিশ বা কখনো কখনো খয়রা ইলিশ খেয়ে ও ইলিশ মাছ খাচ্ছে সেই আনন্দটা তে দিন কাটাতে হয়।

ভাই জীবন একটাই তাই নিজেকে ভালোবাসো অন্যকে ভালোবেসে নিজেকে নিঃশেষ করোনা। টিকিয়ে রাখ সমাজে তোমার অস্তিত্বকে ।সবাই তো সত্যি কারের রোমিও-জুলিয়েট হতে পারে না বা তার হওয়ার সুযোগও পায় না। তাই তোমার নিজের জীবনের রোমিও হয়ে হাসিমুখে খুশিতে বাঁচতে ক্ষতি কি.....ভালো থাকার অধিকার তো সবার আছে তাই না?